1. admin@dailyoporadh.com : admin :
Teenpatti Ace Pro অনলাইন ভিত্তিক নতুন জুয়া - দৈনিক অপরাধ
সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:০১ পূর্বাহ্ন
সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রোগী শনাক্তের হার বেড়ে ১০ শতাংশ ছাড়িয়েছে করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন কিংবদন্তিতুল্য সংগীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকর মেঘাচ্ছন্ন আকাশ ও বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা কমতে পারে ঢাকার বাইরে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছেন চট্টগ্রামে দেশে করোনা রোগী শনাক্তের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিন আগামী শনিবার থেকে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করবে ট্রেন লেনদেনের তালিকা তৈরি করেছে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকম লিমিটেড ও তাদের পেমেন্ট গেটওয়ে প্রতিষ্ঠান ফস্টার করপোরেশন লিমিটেড করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়তে থাকায় গণপরিবহনে যাত্রী চলাচল নিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার পৌষের প্রায় শেষ, মাঘ আসি আসি করছে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী সব শিক্ষার্থীকে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে করোনার টিকা দিতে হবে

Teenpatti Ace Pro অনলাইন ভিত্তিক নতুন জুয়া

মেহেদী হাসান
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৫৯ বার পঠিত

বাংলাদেশে নতুন অন-লাইন জুয়ার আগমন- Teenpatti Ace Pro Game অনুসন্ধানে দেখা যায়, দেশের বাইরে থেকেই দেশেও পরিচালিত হয় এসব জুয়ার বিভিন্ন ডিজিটাল মাধ্যম। জুয়াড়িদের লোভনীয় অফারে প্লে স্টোর থেকে গেমসটি ডাউনলোড করে ফেসবুকের সাথে লগইন করে নিবন্ধন করেন দেশের শত শত তরুণ তরুণী। জুয়ায় অংশ নিতে গেমসের চিপস এর মূল্য পরিশোধ করতে হয় ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে। যাদের ক্রেডিট কার্ড নেই সেখানে বিকল্প ব্যবস্থা করেন- শাহজাহান আলম নামের এক জুয়ার এজেন্ট। জুয়ার সাইট বা গেমসগুলোর জন্য ‘এজেন্ট’ হয়ে কাজ করে শাহজাহান আলম ছাড়াও একদল লোক। তারাই ভিন্ন দেশ থেকে অ্যাকাউন্ট খুলে দেওয়া এবং টাকা পরিশোধের কাজ করে দেন। আর শাজাহান আলমের হাত ধরেই বাংলাদেশ থেকে ‘হার্ড ক্যাশ’ দেশের বাইরে চলে যায় হুন্ডির মাধ্যমে। আবার কেউ জুয়ায় জিতে গেলে সেই অর্থও শাজাহান আলমের হাত ধরেই জুয়াড়ির হাত পর্যন্ত পৌঁছায়। যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এই ব্যাক্তির আইডির নাম দেয়া Md Shajahan Alam। আর তার মাধ্যমে পরিচালিত জুয়ার এই গেমের নাম Teenpatti Ace Pro। এ নামের গেমের নামে ফেসবুকে একটি ম্যাসেঞ্জার গ্রুপও খুলেছে শাজাহান আলম, যার নিয়ম হচ্ছে ১ কোটি চিপস এর রেট-৩৮/৪০ টাকার মাধ্যমে কিনতে হয় যা বিকাশ বা নগদের মাধ্যমে লেনদেন হয় এবং কেউ খেলায় জিতে গেলে সেই চিপস বিক্রি হয় ৩২ থেকে ৩৩ টাকায়, তবে বিক্রি করা যায় না কারন কেউ জয়ী হতে পারে না।খোজ নিয়ে জানা যায় এই গেমসের টাকা পাচার হয় চায়নাতে,আর বাংলাদেশ থেকে পরিচালনা করে শাহজাহান আলম নামের এই জুয়ার এজেন্ট।শুধু তাই নয় শাহজাহান আলম এই গেমস পরিচালনার জন্য নতুন নতুন এজেন্ট নিয়োগ দিচ্ছে বাংলাদেশে এবং তাদের মাধ্যমে চলছে রমরমা ব্যবসা।আরো জানা যায় এই এজেন্ট শাহজাহান আলমের বাড়ি কুমিল্লাতে।সে মূলত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে এই বিজনেসটা করে যাচ্ছে, তার দুটি নাম্বার আমাদের কাছে থাকলেও কল দিলে তা রিসিভ করেনি, তাই এই বিষয়ে তার কাছ থেকে কোন কিছু জানা যায়নি। অর্থের লেনদেন সম্পর্কে এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, সাধারণত অর্থ হুন্ডির মাধ্যমে লেনদেন হয়, এই বিষয়টি সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগ থেকে দেখা হয়।পুলিশ কর্মকর্তা আরো বলেন পুরো চক্রটিকে ধরার জন্য আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd