1. admin@dailyoporadh.com : admin :
বাংলাদেশ টি-২০ দলে কেন পাওয়ার হিটার নেই - দৈনিক অপরাধ
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১৩ অপরাহ্ন
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
(ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের আটকাবস্থা থেকে দুই ম্যাজিস্ট্রেটসহ পাঁচজনকে রোববার রাতে উদ্ধার করা হয়েছে ৪১তম বিসিএসের আবশ্যিক বিষয়ের লিখিত পরীক্ষা আজ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে অন্যের হয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়ে ধরা পড়া বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) এক ছাত্রকে কারাগারে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরিস্থিতি নিয়ে আজ সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার রায় আজ করোনাভাইরাসের নতুন ধরন (ভেরিয়েন্ট) ১১টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ব্লুটুথ প্রযুক্তিসংবলিত কোনো মোটরসাইকেলের নিবন্ধন দেবে না বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) ডিসেম্বরের শুরুতে এটি নিম্নচাপ থেকে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে: আবহাওয়া অধিদপ্তর শিক্ষার্থীদের কম ভাড়ায় চলাচল নিশ্চিত করা উচিত, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান ২৪ ঘণ্টায় আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে

বাংলাদেশ টি-২০ দলে কেন পাওয়ার হিটার নেই

দৈনিক অপরাধ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : শনিবার, ৬ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৩ বার পঠিত

‘আমাদের দলে পাওয়ার হিটার নেই’—বাংলাদেশ ক্রিকেট দল টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলতে নামলেই এটি নিয়ে আক্ষেপ হয়। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চোখে আঙুল দিয়েই যেন দেখিয়ে দিয়েছে, বাংলাদেশ দলে কথায় কথায় চার–ছক্কা মারার ব্যাটসম্যান নেই। কিন্তু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ভালো করতে যে দলের এ ধরনের ব্যাটসম্যানের প্রয়োজন। খুবই প্রয়োজন। বাংলাদেশ এখন কীভাবে পেতে পারে ‘পাওয়ার হিটার’। এটা কি তৈরি করা যায়?

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও হালে নির্বাচক হাবিবুল বাশার কিছুদিন আগেই বলেছিলেন, এ সংস্করণে ভালো করতে হলে বাংলাদেশ দলের পাওয়ারপ্লে ব্যাটিংয়ে উন্নতি ঘটাতে হবে। তিনিও লেট মিডল অর্ডার ব্যাটিংয়ে পাওয়ার হিটার না থাকার আক্ষেপ শুনিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, অন্য দলে এমন ব্যাটসম্যান আছেন, যাঁরা মাঠের চারদিকে মেরে খেলতে পারেন। যদি প্রয়োজনীয় রানরেট ১০-১২–ও হয়ে যায়, তবু তাঁরা মেরে সেই রান তুলে নিতে পারেন।

কেবল এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপই নয়, বেশ আগে থেকেই পরিষ্কার হয়ে গেছে বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যানদের সামর্থ্য। চার-ছক্কা মারার ব্যাটসম্যান যেহেতু দলে নেই, তাই এ সংস্করণে কখনোই ভালো করতে পারে না বাংলাদেশ।

‘পাওয়ার হিটার’ কীভাবে বের করা যাবে—এ প্রশ্নের উত্তরও সেদিন হাবিবুল দিয়েছিলেন। তাঁর কথা একটাই—‘দেশে ভালো উইকেট তৈরি করতে হবে, সেটি বিপিএলই হোক কিংবা অন্য কোনো ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। আমরা দেশে সাধারণত ভালো উইকেট পাই না। প্রচুর ম্যাচ হয় প্রায় একই উইকেটে। ঘরের মাঠে আন্তর্জাতিক ম্যাচেও আমরা প্রতিপক্ষের বিপক্ষে হোম কন্ডিশনের সুবিধা পেতে চাই।’

হাবিবুল স্পষ্ট করে না বললেও তিনি যে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের কথা বুঝিয়েছেন, এটা না বললেও চলছে। তিনি ‘হোম কন্ডিশন’–এর কথা বলেও অনেক কিছুই বলে দিয়েছেন। বিশ্বকাপের ঠিক আগে মিরপুরের উইকেটে অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় সারির দলকে পেয়ে আমরা সিরিজ জিতেছিলাম। অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ড দলও ভড়কে গিয়েছিল মিরপুরের উইকেট দেখে। সরাসরি না বললেও তাদের ক্রিকেটাররা আকারে-ইঙ্গিতে সমালোচনা করে গেছেন।

‘পাওয়ার হিটার নেই’ বলে যে আক্ষেপ আমাদের, সেটি কেন, সে উত্তর খুঁজে নিতে খুব বড় ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ হওয়ার দরকার নেই। এটা পরিষ্কার যে ক্রমাগত বাজে উইকেটে খেলতে খেলতে আমাদের ব্যাটসম্যানদের এমন অভ্যাস দাঁড়িয়েছে যে তাঁরা এখন মেরে খেলতেই ভয় পান। এই ভয়, শঙ্কা তাঁদের ভেতরে–ভেতরে এমনভাবে কুঁকড়ে রেখেছে, যেটির বাজে প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। আমাদের ক্রিকেটারদের অবস্থা অনেকটা সারা বছর প্রশ্ন ফাঁস করে পরীক্ষা দেওয়া ছাত্রদের মতো। পরীক্ষায় কী আসছে, আগে থেকেই তারা জেনে যায়। সে কারণে আরও বিস্তৃত পরিসরে পড়াশোনার প্রয়োজনীয়তাই অনুভব করে না তারা। হঠাৎই যদি তাদের প্রতিযোগিতামূলক কোনো পরীক্ষায় বসিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে তারা হোঁচট খায় স্বাভাবিক নিয়মেই।

ছক্কা-চার মারার ব্যাটসম্যান শিখিয়ে-পড়িয়ে তৈরি করা যায় না। এমন কিছু সম্ভব নয়। তথাকথিত পাওয়ার হিটিংও বিশেষ কোনো বিষয় নয়, যেটি ব্যাটসম্যানের মধ্যে ঢুকিয়ে দেওয়া যায়। চার-ছক্কা সবাই মারতে পারেন, দলের প্রয়োজন বুঝে মারতে পারা, বলেকয়ে মারতে পারাই আসলে সেই তথাকথিত পাওয়ার হিটিং।

 

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd