1. admin@dailyoporadh.com : admin :
নভোচারীরা আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে (আইএসএস) জন্মানো মরিচগাছ থেকে প্রথম ফসল তোলেন ২৯ অক্টোবর - দৈনিক অপরাধ
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০২:৪২ অপরাহ্ন
সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০২:৪২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
(ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের আটকাবস্থা থেকে দুই ম্যাজিস্ট্রেটসহ পাঁচজনকে রোববার রাতে উদ্ধার করা হয়েছে ৪১তম বিসিএসের আবশ্যিক বিষয়ের লিখিত পরীক্ষা আজ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে অন্যের হয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়ে ধরা পড়া বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) এক ছাত্রকে কারাগারে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরিস্থিতি নিয়ে আজ সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার রায় আজ করোনাভাইরাসের নতুন ধরন (ভেরিয়েন্ট) ১১টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ব্লুটুথ প্রযুক্তিসংবলিত কোনো মোটরসাইকেলের নিবন্ধন দেবে না বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) ডিসেম্বরের শুরুতে এটি নিম্নচাপ থেকে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে: আবহাওয়া অধিদপ্তর শিক্ষার্থীদের কম ভাড়ায় চলাচল নিশ্চিত করা উচিত, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান ২৪ ঘণ্টায় আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে

নভোচারীরা আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে (আইএসএস) জন্মানো মরিচগাছ থেকে প্রথম ফসল তোলেন ২৯ অক্টোবর

দৈনিক অপরাধ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ৩ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৯ বার পঠিত

নভোচারীরা আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে (আইএসএস) জন্মানো মরিচগাছ থেকে প্রথম ফসল তোলেন ২৯ অক্টোবর। টুইটারে ছবি পোস্ট করে সে খবর জানায় মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। ‘প্ল্যান্ট হ্যাভিটেট-০৪’ শীর্ষক গবেষণার অংশ হিসেবে আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে মরিচ ফলানো হয়।

নাসার টুইটের পর মার্কিন নভোচারী মেগান ম্যাকআর্থার তাঁদের অর্জন নিয়ে আরেকটি টুইট করেন। তিনি এখন আইএসএসে কর্মরত। মেগানের পোস্ট থেকে জানা যায়, মহাকাশে জন্মানো মরিচ থেকে মেক্সিকান পদ টাকো বানিয়েছেন তাঁরা। সেটার স্বাদও নিয়েছেন আইএসএসের নভোচারীরা।

ছবির ক্যাপশনে মেগান লেখেন, ‘ফ্রাইডে ফিস্টিং। ফসল তোলার পর লাল ও সবুজ মরিচের স্বাদ নেওয়ার সুযোগ হয়েছে আমাদের। এরপর আমরা জরিপ করি। যাক, শেষ পর্যন্ত আমি আমার সেরা মহাকাশ টাকো বানিয়েছি। এতে ছিল ফাজিতা বিফ, রিহাইড্রেটেড (শুকনা খাওয়ার পানি দিয়ে ভেজান) টমেটো ও আর্টিচোক এবং আবাদের মরিচ।’

সে টুইটের পর অনেকেই বেশ আগ্রহী হয়ে ওঠেন। মহাকাশে জন্মানো উদ্ভিদের ফসল নিয়ে প্রশ্ন করেন। অনেকে মহাকাশে ফসল ফলানোর প্রক্রিয়া জানতে চেয়েছেন। কেউ কেউ জানতে চেয়েছেন মাধ্যাকর্ষণের অভাবে কীভাবে টাকোর ভেতরের উপাদানগুলো একসঙ্গে জুড়ে ছিল।

এক ব্যবহারকারী টাকো তৈরির ভিডিও দিতে বলেছেন। তিনি লিখেছেন, টুকরাগুলো না ছড়িয়ে মরিচ কুচি করলেন কীভাবে?

আরেক ব্যবহারকারী বিশাল এক টাকোর অ্যানিমেটেড ছবি দিয়েছেন, যেটি মহাকাশে ভেসে বেড়াচ্ছে। ক্যাপশনে লেখেন, তো আপনি কি বলতে চাইছেন এই টাকো দুনিয়ার বাইরের (আউট অব দিজ ওয়ার্ল্ড)?

আরও মজার সব কমেন্ট এসেছে। একজন বলেছেন, মহাকাশে জন্মানো মরিচ পৃথিবীতে নিলামে অনেক দামে বিক্রি হতে পারে। সঙ্গে যোগ করেন, এর দাম এত হতে পারে যে গোটা মহাকাশকেন্দ্র হয়তো নতুন করে গঠন করা সম্ভব হবে।

আরেকজন কেবল মরিচে সন্তুষ্ট নন। মজা করে বলেছেন, আইএসএসে মুরগির খামার করা উচিত। মুরগি থেকে ডিম, ডিম থেকে মুরগি—এভাবে নাকি নভোচারীদের খাবারের চাহিদা মেটানো যেতে পারে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd