1. admin@dailyoporadh.com : admin :
দ্বিতীয় ধাপে সারা দেশে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে - দৈনিক অপরাধ
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:০৪ অপরাহ্ন
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:০৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শতবর্ষী বটগাছটি সম্প্রীতির নিদর্শন হয়ে আছে ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই বৃষ্টির বাগড়া শুধু পাস করেই চাকরির পেছনে না ছুটে নিজেরা উদ্যোক্তা হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে করোনা সংক্রমিত ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে, এ সময় রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৯৭ জন বাংলাদেশ ও ভারতের বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হতে পারে করোনাভাইরাসের সংক্রমণে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সঙ্গে ডেমু ট্রেনের সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরও চারজন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে কন্টেইনারবাহী কাভার্ড ভ্যানের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন করোনার দুঃসময়ে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা সমুদ্রগামী জাহাজে বিনিয়োগের সুযোগ নিয়েছেন এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলমান আন্দোলন কর্মসূচি সীমিত

দ্বিতীয় ধাপে সারা দেশে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে

মেহেদী হাসান
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২২ অক্টোবর, ২০২১
  • ৫৩ বার পঠিত

দ্বিতীয় ধাপে সারা দেশে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে। এর মধ্যে প্রায় সব কটি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। এর বাইরে দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে আওয়ামী লীগের অনেক নেতা–কর্মী চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তাঁরা স্বতন্ত্র হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করলেও মূলত আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বিপরীতে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর ভূমিকায় আছেন।

সারা দেশে ৬৩ জেলায় আওয়ামী লীগের প্রচুর বিদ্রোহী প্রার্থী পাওয়া গেছে। খোজ নিয়ে ৮৪৮টি ইউপিতে ৮৯৭ জন ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর সন্ধান পেয়েছেন। তাঁরা ইতিমধ্যে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তাঁদের মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের কয়েকজন সাংসদের স্বজনও আছেন। আবার জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আওয়ামী লীগের কমিটিতে থাকা নেতারাও অনেকে বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচন করছেন।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন হতে যাচ্ছে। ১৭ অক্টোবর ছিল মনোয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ হবে ২৭ অক্টোবর। প্রথম ধাপে স্থগিত থাকা ১৬০টি ইউপিতে ভোট হয় গত ২০ সেপ্টেম্বর। নির্বাচনে সহিংসতায় কক্সবাজারে দুজন নিহত হন। প্রথম ধাপের ওই নির্বাচনে ১১৯টিতে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা।

সাংসদের স্বজনেরাও বিদ্রোহী
যশোরের ঝিকরগাছায় ১১টি ইউপিতে নির্বাচন হবে। আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত হয়ে আটটি ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে যশোর-২ আসনের ক্ষমতাসীন দলের সাংসদ নাসির উদ্দীনের ভাই ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এ কে এম গিয়াস উদ্দীনও বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন মাগুরা ইউপি থেকে। এ ছাড়া চৌগাছায় ১১ ইউপিতে ১৯ বিদ্রোহী আছেন।

জানতে চাইলে গিয়াস উদ্দীন বলেন, ‘আমি মাগুরা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান। দলীয় মনোনয়ন চেয়ে বঞ্চিত হয়েছি। যে কারণে প্রার্থী হয়েছি। ভাই সাংসদ হলেও আওয়ামী লীগে আমার কোনো পদপদবি নেই। এ জন্য আমার হারানোর কিছু নেই। আমি নির্বাচন করেই যাব।’

মাগুরা ইউপিতে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, ‘গিয়াস উদ্দীন গতবারও বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন। কিন্তু আমি পাস করেছি। এবারও তিনি প্রার্থী হয়েছেন। তাঁর বিষয়ে দল ও সাংসদ নিজে ব্যবস্থা নেবেন।’

অনেক নেতাও ‘বিদ্রোহী’র কাতারে
লালমনিরহাটের আদিতমারীর আটটি ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে ছয়টি ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা তাঁদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। সারপুকুর ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য নীল কমল রায়। একই ইউপিতে আরেক বিদ্রোহী হচ্ছেন উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি বাদশা আলমগীর।

কুষ্টিয়ার মিরপুর ও ভেড়ামারায় ১৭টি ইউপিতে নির্বাচন হতে যাচ্ছে। দুই উপজেলায় ১৩ জন বিদ্রোহী প্রার্থী আছেন। মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন শারমিন আক্তার। তাঁর বিপরীতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আনোয়ারুরজ্জামান বিশ্বাস। তিনি বলেন, কেন্দ্র থেকে যাঁকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে, তৃণমূল পর্যায়ে তাঁর কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই। তৃণমূল কর্মীদের চাপে পড়েই তিনি মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

ভেড়ামারায় জুনিয়াদহ ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান, ধরমপুরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সামসুল হক ও চাঁদগ্রামে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক মজিবুল হকও বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন।

মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হালিম বলেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ যাঁদের মনোনীত করেছে, তাঁরাই দলের প্রার্থী। তবে ৯টি ইউনিয়নে দলের কয়েকজন নেতা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরের ১১ ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন ৪৬ জন। এর মধ্যে আটটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের ১৩ জন নেতা বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন।

কোথাও বিদ্রোহীশূন্য, কোথাও ছড়াছড়ি
চারটি জেলায় আওয়ামী লীগের কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই। রাজবাড়ীতে দুটি, হবিগঞ্জে পাঁচটি, খাগড়াছড়িতে ১০টি ও রাঙামাটিতে ১১টি ইউপির একটিতেও আওয়ামী লীগের কোনো বিদ্রোহী পাওয়া যায়নি।

জানতে চাইলে হ‌বিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লী‌গের সাধারণ সম্পাদক মো. আলমগীর চৌধুরী প্রথম আলো‌কে ব‌লেন, দল ও স্থানীয় নেতৃ‌ত্বের প্রতি আস্থা রে‌খে আজ‌মিরীগঞ্জ উপ‌জেলার ৫‌টি ইউনিয়নে কেউ বি‌দ্রোহী প্রার্থী হন‌নি। এ ছাড়া দল বি‌দ্রোহী‌দের সংগঠন থে‌কে ব‌হিষ্কারসহ নানা শা‌স্তিমূলক ব‌্যবস্থা রে‌খে‌ছে। এ বি‌ধির প্রতি সম্মান দে‌খি‌য়ে কেউ দ‌লের বি‌দ্রোহী প্রার্থী হন‌নি।

আবার উল্টো চিত্র আছে বেশ কয়েকটি স্থানে। নওগাঁয় ২০টি ইউপির বিপরীতে সবচেয়ে বেশি—৪২ জন বিদ্রোহী প্রার্থী পাওয়া গেছে। এত বেশি ‘বিদ্রোহী’ কেন, জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল মালেক প্রথম আলোকে বলেন, ‘দলীয় মনোনয়ন প্রদানে অনেক ইউনিয়নে হয়তো তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মতামত উপেক্ষিত হয়েছে। এ কারণে মনোনয়নপত্র দাখিল করা বিদ্রোহী প্রার্থীর সংখ্যা আমাদের দলে একটু বেশি। তবে দলের মনোনয়ন বোর্ড যাঁদের মনোনীত করেছে, দলের নিবেদিত কর্মী হিসেবে তাঁদেরই মেনে নিতে হবে।’

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd