1. admin@dailyoporadh.com : admin :
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনলাইনের পাশাপাশি কিছু ক্লাস সশরীর নেওয়ার পরিকল্পনা - দৈনিক অপরাধ
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সাম্প্রদায়িক শক্তি মনে করে, ঠিক একাত্তরের মতো টার্গেট করে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা চালিয়ে তাদের দেশ থেকে বের করে দেওয়া যায় কক্সবাজারের উখিয়ার থাইনখালী রোহিঙ্গা শিবিরে দুটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় সাত জন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছেন দ্বিতীয় ধাপে সারা দেশে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে কক্সবাজারে আটক হওয়া ব্যক্তিই কুমিল্লার ইকবাল হোসেন, পুলিশ সুপার (এসপি) উজানের পাহাড়ি ঢল আর দুই দিনের বর্ষণে লালমনিরহাটে তিস্তার পানিতে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে দুর্গাপূজার অষ্টমীর দিন কুমিল্লা নগরের নানুয়া দিঘির উত্তর পাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে ইকবাল হোসেন (৩৫) পবিত্র কোরআন রেখেছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতার জন্যই দেশে সাম্প্রদায়িকতার বিস্তার ঘটছে বলে মনে করেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলিউড তারকা শাহরুখ খানের বাড়িতে তল্লাশি চালাতে ঢুকেছেন ভারতের মাদক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর (এনসিবি) কর্মকর্তারা দেশের ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী স্কুলশিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে, ক্রমান্বয়ে দেশের সব মানুষই টিকা পাবে দেশের দ্বিতীয় শীর্ষ মোবাইল অপারেটর রবি আজিয়াটা তাদের সব মোবাইল নেটওয়ার্ক টাওয়ার বিক্রি করে দিচ্ছে

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনলাইনের পাশাপাশি কিছু ক্লাস সশরীর নেওয়ার পরিকল্পনা

জয়িতা
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২১
  • ৫০ বার পঠিত

প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলেছে। পর্যায়ক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও খুলছে। কিন্তু জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোর প্রায় ৩২ লাখ শিক্ষার্থীর সশরীর ক্লাস কবে শুরু হবে, তা এখনো সুনির্দিষ্ট হয়নি। আবার এসব কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রগতিও কম।

এ অবস্থায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পরিকল্পনা করছে অনলাইন ক্লাস চলমান রেখে কিছু ক্লাস সশরীর নেওয়ার। তবে সেটি চূড়ান্ত হবে ১৬ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায়। আর রাজধানীর বড় সাতটি কলেজের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের শিক্ষার্থীদের জন্য কলেজগুলো এ মাসে খুলে দেওয়ার বিষয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করছেন অধ্যক্ষেরা।

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ছুটি শুরু হয়। দেড় বছর পর গত ১২ সেপ্টেম্বর প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে। এ মাসের মধ্যে প্রায় সব কটি বিশ্ববিদ্যালয়ও খুলে দেওয়া হবে।

এর বাইরে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সারা দেশে ২ হাজার ২৬০টি কলেজে শিক্ষার্থী আছেন ২৯ লাখ ৭৫ হাজারের কিছু বেশি। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ঢাকার সাতটি কলেজে শিক্ষার্থী দুই লাখের বেশি।

অধিকাংশ কলেজেই স্নাতক থেকে স্নাতকোত্তর স্তরের পাশাপাশি উচ্চমাধ্যমিকও পড়ানো হয়। সরকারি সিদ্ধান্তে উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত খুলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু স্নাতক থেকে স্নাতকোত্তর স্তরের শিক্ষার্থীদের সশরীর ক্লাস এখনো আটকে আছে। তবে শিক্ষকদের কলেজে যেতে হচ্ছে। কারণ, উচ্চমাধ্যমিকের ক্লাসের পাশাপাশি স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের বিভিন্ন বর্ষের পরীক্ষা চলছে। এ ছাড়া বাড়িতে থেকেও অনলাইনে ক্লাস নিতে হয়। এখন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের শিক্ষার্থীরা চান, প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাঁদের ক্লাসও সশরীর শুরু হোক।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত বড় কলেজগুলোর একটি রংপুরে অবস্থিত কারমাইকেল কলেজ। এ কলেজে মোট শিক্ষার্থী প্রায় ২০ হাজার। কলেজটির অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত সশরীর ক্লাস হচ্ছে। এখন স্নাতক-স্নাতকোত্তরের সশরীর ক্লাস শুরুর জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছেন। তিনি বলেন, স্নাতক থেকে স্নাতকোত্তর স্তরের শিক্ষার্থীদের তালিকা তাঁরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়েছেন। তবে নিবন্ধন বা টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছ থেকে হালনাগাদ কোনো তথ্য পাননি।

প্রাথমিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শিক্ষার্থীদের করোনার অন্তত এক ডোজ টিকা নেওয়া সাপেক্ষে আবাসিক হল ও সশরীর শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করছে। কিন্তু জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজগুলোর শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার বিষয়টি কিছুটা জটিলতার মুখে পড়েছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মকর্তা গতকাল বুধবার জানান, পৌনে ৩০ লাখ শিক্ষার্থীর মধ্যে টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন ৮ লাখ ৩৪ হাজার ৮৪৫ জন। এর মধ্যে কলেজগুলোর ছাত্রাবাসের শিক্ষার্থী আছেন ২০ হাজারের মতো। আর মেসে থাকেন সোয়া লাখের মতো। বাকিরা নিজেদের বাড়িতে থাকেন। তবে নিবন্ধন করা এসব শিক্ষার্থীর মধ্যে কতজন করোনার টিকা নিয়েছেন, সেই তথ্য তাঁদের হাতে নেই।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মশিউর রহমান মনে করেন, জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) না থাকায় বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থীর টিকা দেওয়ার বিষয়টি কিছুটা জটিলতার মধ্যে ছিল। তবে এনআইডি না থাকা শিক্ষার্থীদের এখন জন্মনিবন্ধন সনদ দিয়েও করোনার টিকার নিবন্ধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এ রকম পরিস্থিতিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজগুলো কবে খুলবে জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, তাঁদের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনেক আগে থেকে অনলাইনে ক্লাস হচ্ছে। পরীক্ষাগুলো জমে গিয়েছিল, এখন পরীক্ষাও হচ্ছে। এখন তাঁরা পরিকল্পনা করছেন চলমান অনলাইন ক্লাসের পাশাপাশি কিছু ক্লাস সশরীর নেওয়ার। ১৬ অক্টোবর সিন্ডিকেট সভায় সেই প্রস্তাব তুলে ধরা হবে। এ ছাড়া প্রথম বর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস হলেও ২১ অক্টোবর তাঁদের পরিচিতিমূলক অনুষ্ঠান করে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd