1. admin@dailyoporadh.com : admin :
করোনার টিকার উভয় ডোজ গ্রহণকারীদের শরীরে এর চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি অ্যান্টিবডি শনাক্ত হয়েছে - দৈনিক অপরাধ
সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন
সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রোগী শনাক্তের হার বেড়ে ১০ শতাংশ ছাড়িয়েছে করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন কিংবদন্তিতুল্য সংগীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকর মেঘাচ্ছন্ন আকাশ ও বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা কমতে পারে ঢাকার বাইরে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছেন চট্টগ্রামে দেশে করোনা রোগী শনাক্তের সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিন আগামী শনিবার থেকে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করবে ট্রেন লেনদেনের তালিকা তৈরি করেছে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকম লিমিটেড ও তাদের পেমেন্ট গেটওয়ে প্রতিষ্ঠান ফস্টার করপোরেশন লিমিটেড করোনা সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়তে থাকায় গণপরিবহনে যাত্রী চলাচল নিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার পৌষের প্রায় শেষ, মাঘ আসি আসি করছে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী সব শিক্ষার্থীকে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে করোনার টিকা দিতে হবে

করোনার টিকার উভয় ডোজ গ্রহণকারীদের শরীরে এর চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি অ্যান্টিবডি শনাক্ত হয়েছে

দৈনিক অপরাধ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৭০ বার পঠিত

  1. করোনার টিকা না নেওয়া ব্যক্তিদের ৫০ শতাংশের শরীরে প্রাকৃতিকভাবে সার্স কোভ-২ ভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি পাওয়া গেছে। অথচ তাঁরা যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন, তা টেরই পাননি। তবে এই অ্যান্টিবডির স্থায়িত্ব কম। করোনার টিকার উভয় ডোজ গ্রহণকারীদের শরীরে এর চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি অ্যান্টিবডি শনাক্ত হয়েছে। টিকা নেওয়ার ছয় মাসের বেশি সময় পর্যন্ত অ্যান্টিবডি ভালোভাবে বিদ্যমান ছিল।

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) ওয়ান হেলথ ইনস্টিটিউট ‘কোভিড-১৯ অ্যান্টিবডির ব্যাপকতা ও পরিমাণ শনাক্তকরণ’ শীর্ষক এক জরিপ গবেষণায় এ চিত্র উঠে এসেছে। অ্যান্টিবডির (IgG) উপস্থিতি ও পরিমাণ Enzyme-Linked Immunosorbent Assay (ELISA) test মেথডে এ গবেষণা করা হয়।

গবেষণায় সেরোপজিটিভিটি (রক্তে সার্স কোভ-২–এর অ্যান্টিবডির উপস্থিতি) সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় বিশ্লেষণ করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার গবেষণা প্রতিবেদনটি প্রথম আলোর হাতে এসেছে।

সিভাসুর উপাচার্য গৌতম বুদ্ধ দাশ এ জরিপ গবেষণায় নেতৃত্ব দেন। এ ছাড়া সিভাসুর অধ্যাপক শারমিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যাপক এম এ হাসান চৌধুরী, চিকিৎসক জাহান আরা, সিরাজুল ইসলাম, তারেক উল কাদের, আনান দাশ, মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, ইয়াসির হাসিব, তাজরিনা রহমান ও সীমান্ত দাশ গবেষণায় যুক্ত ছিলেন।

গবেষণায় বিভিন্ন শ্রেণিপেশার ৭৪৬ জনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়, যাঁরা করোনার ঝুঁকিতে ছিলেন। এর মধ্যে সরকারি–বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স, রোগীর অভিভাবক, পরিচ্ছন্নতাকর্মী ও পোশাকশ্রমিকেরা ছিলেন। গত মার্চ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ জরিপ গবেষণা চলে।

৬ মাসের বেশি ছিল অ্যান্টিবডি
গবেষণায় দেখা যায়, মোট ৭৪৬ জনের মধ্যে প্রায় ২২৩ জন (৩০ শতাংশ) কোভিড-১৯ টিকার শুধু প্রথম ডোজ নিয়েছেন। উভয় ডোজ নিয়েছেন ২৩১ জন (৩১ শতাংশ) আর টিকা নেননি ২৯২ জন (৩৯ শতাংশ)। করোনার টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণকারীদের ৬২ শতাংশের মধ্যে অ্যান্টিবডির অস্তিত্ব মিলেছে। উভয় ডোজ গ্রহণকারী ৯৯ শতাংশের বেশির ভাগের মধ্যে ছয় মাসের বেশি সময় ধরে অ্যান্টিবডি ছিল।

অধ্যাপক এম এ হাসান চৌধুরী বলেন, অনেকে উপসর্গহীনভাবে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে যে ৫০ শতাংশের অ্যান্টিবডি রয়েছে, তাঁরা যে আক্রান্ত ছিলেন, হয়তো তা টেরই পাননি। কিন্তু তাঁদের অ্যান্টিবডি দীর্ঘস্থায়ী না–ও থাকতে পারে। টিকা গ্রহণকারীদের শরীরে অ্যান্টিবডি বেশি পাওয়া গেছে।

কোন ডোজে কত অ্যান্টিবডি
গবেষণায় দেখা গেছে, যাঁরা টিকা গ্রহণ করেননি, তাঁদের শরীরে প্রাকৃতিকভাবে সার্স কোভ-২ ভাইরাসের বিরুদ্ধে যে পরিমাণ অ্যান্টিবডি (IgG) তৈরি হয়েছে (গড়ে ৫৩.৭১ ডিইউ/মিলি), এর চেয়ে গড়ে প্রায় তিন গুণ বেশি অ্যান্টিবডি (১৫৯.০৮ ডি ইউ/মিলি) তৈরি হয়েছে যাঁরা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন, তাঁদের শরীরে। আবার তাঁদের চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি অ্যান্টিবডি (২৫৫.৪৬ ডি ইউ/মিলি) পাওয়া গেছে যাঁরা উভয় ডোজ গ্রহণ করেছেন, তাঁদের মধ্যে।

গবেষকেরা মনে করেন, চলমান টিকার আওতায় সবাইকে আনতে হবে। আক্রান্ত হলে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়। কিন্তু তা দীর্ঘস্থায়ী নয়। সিভাসুর উপাচার্য গৌতম বুদ্ধ দাশ বলেন, টিকা সবাইকে নিতে হবে। গবেষণায় দেখা গেছে, দুই ডোজ টিকা নেওয়ার ছয় মাস পরও কোভিড-১৯ সুরক্ষা দেওয়ার মতো অ্যান্টিবডি পর্যাপ্ত পরিমাণে রয়েছে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd