1. admin@dailyoporadh.com : admin :
আইনি লড়াইয়ে নিজ জিম্মায় থাকার সুযোগ পেলেন তরুণী - দৈনিক অপরাধ
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৭ অপরাহ্ন
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বাংলাদেশের সঙ্গে তুরস্কের বাণিজ্যিক সম্পর্ক করোনা মহামারির মধ্যেও খুব একটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন তুরস্কের রাষ্ট্রদূত ধর্মীয় সম্প্রীতিতে বাংলাদেশকে পৃথিবীর ‘নাম্বার ওয়ান’ বা সেরা উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন করোনা সংক্রমণে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, এ সময় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ২৭৮ জন। চেক জালিয়াতির মাধ্যমে যশোর শিক্ষা বোর্ডের ব্যাংক হিসাব থেকে আরও আড়াই কোটি টাকা আত্মসাত সারা দেশে প্রতিমা, পূজামণ্ডপ, মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে গণ–অনশন, গণ–অবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল করছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা উচ্চমাধ্যমিক বা এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের জন্য আবার সুযোগ দিয়েছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড সাম্প্রদায়িক শক্তি মনে করে, ঠিক একাত্তরের মতো টার্গেট করে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা চালিয়ে তাদের দেশ থেকে বের করে দেওয়া যায় কক্সবাজারের উখিয়ার থাইনখালী রোহিঙ্গা শিবিরে দুটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় সাত জন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছেন দ্বিতীয় ধাপে সারা দেশে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে কক্সবাজারে আটক হওয়া ব্যক্তিই কুমিল্লার ইকবাল হোসেন, পুলিশ সুপার (এসপি)

আইনি লড়াইয়ে নিজ জিম্মায় থাকার সুযোগ পেলেন তরুণী

মেহেদী হাসান
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৩৭ বার পঠিত

আইনি লড়াইয়ে নিজ জিম্মায় থাকার সুযোগ পেলেন প্রাপ্তবয়স্ক এক তরুণী। তাঁকে শেলটার হোমে রাখতে যশোরের মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন ট্রাইব্যুনাল আদেশ দিয়েছিলেন। এর বিরুদ্ধে তিনি নিজ জিম্মায় থাকতে চেয়ে হাইকোর্টে আপিল করেন। এই আপিল মঞ্জুর করে তাঁকে নিজ জিম্মায় থাকার অনুমতি দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি মো. বদরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।

ঘটনার শুরু গত বছর। তরুণীর বাবা থাকেন বিদেশ। আর মা মেয়েকে বিয়ে দিতে চান। এতে আপত্তি করেন মেয়েটি। পরে মেয়েটি চলে আসেন ঢাকায়। কাজ নেন একটি প্রতিষ্ঠানে। নিরাপত্তা নিশ্চিতে বনানী থানায় তিনি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

অন্যদিকে, মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে যশোরে আদালতে মামলা করেন মেয়েটির মা। মেয়েটিকে ঢাকা থেকে উদ্ধার করে যশোরের মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়। মেয়েটি জবানবন্দি দিয়ে নিজ জিম্মায় থাকার আরজি জানান। অন্যদিকে মা নিজ জিম্মায় নিতে চান মেয়েকে। শুনানি নিয়ে ট্রাইব্যুনাল মেয়েটিকে শেলটার হোমে রাখার আদেশ দেন।

শেলটার হোমে থেকে ট্রাইব্যুনালের আদেশের বিরুদ্ধে গত জুলাই মাসে হাইকোর্টে আপিল করেন মেয়েটি। হাইকোর্ট ২ সেপ্টেম্বর মেয়েটির বক্তব্য শোনেন। এর আগে মেয়েটিকে যশোরের শেলটার হোম থেকে ঢাকা নিয়ে আসা হয়। শুনানি নিয়ে আজ আদেশ দেওয়া হয়।

আইনি লড়াইয়ের পূর্বাপর
নথিপত্রে দেখা যায়, মেয়েটির জন্ম ২০০১ সালের সেপ্টেম্বরে। চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি ঢাকার বনানী থানায় তাঁর করা জিডির ভাষ্যমতে, মাসহ অন্যরা তাঁর ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর করে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। বিয়েতে তিনি অনীহা প্রকাশ করেন। এর জেরে তিনি গত ২০ জানুয়ারি ঢাকায় চলে আসেন। বনানীতে এক আত্মীয়ের বাসায় থাকাকালে মাসহ অন্যরা তাঁকে মুঠোফোনে ভয়ভীতি ও হুমকি দেন।

অন্যদিকে, মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে মেয়েটির মা গত ২৩ মে চারজনের বিরুদ্ধে যশোরের আদালতে নালিশি মামলা করেন। এতে অভিযোগ করা হয়, তাঁর মেয়েকে আসামিরা যেকোনো সময় দেশের বাইরে পাচার করে দিতে পারেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাইব্যুনাল নালিশি আবেদন তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে পিবিআইকে নির্দেশ দেন। সেই সঙ্গে মেয়েটিকে উদ্ধারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। পরে মেয়েটিকে উদ্ধার করে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

গত ২৩ জুন মেয়েটি ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। মেয়েটি নিজ হেফাজতে থাকার আবেদন করেন। একই দিন মেয়েটিকে নিজ জিম্মায় চেয়ে আবেদন করেন তাঁর মা।

ট্রাইব্যুনাল ২৪ জুন আদেশের জন্য দিন রাখেন। আদেশে বলা হয়, নিরাপত্তার স্বার্থে ও কল্যাণার্থে মেয়েটিকে নিজ জিম্মায় না দিয়ে শেলটার হোমে রাখাই বলে যুক্তিযুক্ত মর্মে ট্রাইব্যুনালের অভিমত। পরে মেয়েটিকে শেলটার হোমে রাখা হয়।

হাইকোর্টে মেয়েটির পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী তাসমিয়াহ নুহিয়া আহমেদ। আদেশের পর তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ট্রাইব্যুনালের আদেশের পর প্রায় আড়াই মাস ধরে মেয়েটি শেলটার হোমে আছেন। হাইকোর্টের আদেশের ফলে এখন তিনি নিজ জিম্মায় থাকার সুযোগ পেলেন, তথা আপাতত মুক্তি পেলেন।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd