1. admin@dailyoporadh.com : admin :
ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ও মৃত্যু উভয়ই বাড়ছে - দৈনিক অপরাধ
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইকবাল কার প্ররোচনায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রেখেছিলেন, তা বলেননি বাংলাদেশের সঙ্গে তুরস্কের বাণিজ্যিক সম্পর্ক করোনা মহামারির মধ্যেও খুব একটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন তুরস্কের রাষ্ট্রদূত ধর্মীয় সম্প্রীতিতে বাংলাদেশকে পৃথিবীর ‘নাম্বার ওয়ান’ বা সেরা উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন করোনা সংক্রমণে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, এ সময় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ২৭৮ জন। চেক জালিয়াতির মাধ্যমে যশোর শিক্ষা বোর্ডের ব্যাংক হিসাব থেকে আরও আড়াই কোটি টাকা আত্মসাত সারা দেশে প্রতিমা, পূজামণ্ডপ, মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে গণ–অনশন, গণ–অবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল করছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা উচ্চমাধ্যমিক বা এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের জন্য আবার সুযোগ দিয়েছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড সাম্প্রদায়িক শক্তি মনে করে, ঠিক একাত্তরের মতো টার্গেট করে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা চালিয়ে তাদের দেশ থেকে বের করে দেওয়া যায় কক্সবাজারের উখিয়ার থাইনখালী রোহিঙ্গা শিবিরে দুটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় সাত জন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছেন দ্বিতীয় ধাপে সারা দেশে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ও মৃত্যু উভয়ই বাড়ছে

জুয়েল দাস।
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৬ আগস্ট, ২০২১
  • ৩৩ বার পঠিত

দেশে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ যখন কমছে, তখন বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ও মৃত্যু উভয়ই বাড়ছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, জুলাইয়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে ২ হাজার ২৮৬ জন। আর আগস্টের প্রথম ২৩ দিনে এ সংখ্যা ৫ হাজার ৯১৭। জুলাইয়ে ডেঙ্গুতে মারা গেছে ১২ জন, আগস্টে ২৫ জন।

অন্যদিকে, দেশে করোনায় সংক্রমিত রোগী, শনাক্তের হার ও মৃত্যু এখন নিম্নমুখী।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গত মঙ্গলবার সকাল আটটা থেকে গতকাল বুধবার সকাল আটটা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মোট ৩৩ হাজার ৬৪০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৪ হাজার ৯৬৬ জনের দেহে সংক্রমণ শনাক্ত হয়। পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৭৬। ৭০ দিন পর গতকাল দেশে রোগী শনাক্তের হার ১৫ শতাংশের নিচে নেমেছে। সংক্রমণের পাশাপাশি মৃত্যুও কমছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনায়। এর চেয়ে কম ১১২ জনের মৃত্যু হয়েছিল গত ২৯ জুন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, চলতি বছর ৮ হাজার ৮৫৩ জনের ডেঙ্গু শনাক্ত হয়েছে। ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৪০ জন। এর মধ্যে আগস্ট মাসের প্রথম ২৫ দিনেই ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

হাসপাতালগুলোয় করোনা রোগীর চাপ যখন কমছে, তখন বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী। ঢাকায় সরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতাল, ঢাকা শিশু হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর চাপ বেশি।

মিটফোর্ড হাসপাতালে শুক্র থেকে সোমবার—এই চার দিনে রোগী ভর্তি হয় যথাক্রমে ২৪১, ২১৬, ২৩৬ ও ১৯৮ জন।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের নথি অনুযায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা পাঁচ। জুনে এই সংখ্যা ১৪। জুলাইয়ে ১০৪ জন। আগস্টের প্রথম ২০ দিনে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২৩৩, যা আগের মাসের চেয়ে ২২৪ শতাংশ বেশি।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের হিসাব অনুযায়ী, সেখানে মোট ডেঙ্গু শনাক্তের মধ্যে প্রায় ৬৫ শতাংশ হয় আগস্টে (প্রথম ২০ দিন)। ২৯ শতাংশ জুলাইয়ে। প্রায় ৪ শতাংশ জুনে। আর ১ দশমিক ৪০ শতাংশ জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত শনাক্ত হয়।

ঢাকা শিশু হাসপাতালে এ বছর ডেঙ্গুতে সাতটি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। তার মধ্যে জুলাইয়ে চারটি ও আগস্টের প্রথম ২০ দিনে তিনটি শিশু মারা গেছে।

২০১৯ সালে দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চসংখ্যক ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়। গত বছর তা কম ছিল। কিন্তু এ বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে দেখা যাচ্ছে।

বিভিন্ন গণমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ৩০০ লোক প্রাণ হারায়। যদিও সরকারি হিসাবে সংখ্যাটি ১৭৯। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, সে সময় সারা দেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিল ১ লাখ ১ হাজার ৩৫৪ জন। ২০২০ সালে শনাক্ত রোগী সংখ্যা ১ হাজার ৪০৫। কিন্তু চলতি বছর শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮ হাজার ৮৫০ ছাড়িয়েছে। আর মৃত্যুর সংখ্যা ৪০।

মিটফোর্ড হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী রশিদ উন নবী বলেন, ‘গত বছর সেপ্টেম্বরে ডেঙ্গু রোগী তুলনামূলকভাবে বেশি ছিল। সে অনুযায়ী আমরা সেপ্টেম্বরের জন্য প্রস্তুত আছি। এক সপ্তাহে আগের চেয়ে বেশি রোগী ছিল। আমাদের এখানে ডেঙ্গু রোগী ক্রমাগত বৃদ্ধির প্রবণতায় আছে।’

ঢাকা শিশু হাসপাতালের রোগতত্ত্ববিদ কিংকর ঘোষ প্রথম আলোকে বলেন, এক সপ্তাহ ধরে ডেঙ্গু রোগী ভর্তির সংখ্যা বাড়ছে। অন্যদিকে, কমেছে করোনায় সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা।
ডেঙ্গু বনাম করোনা: ঢাকা শিশু হাসপাতাল

যেসব হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী ও করোনা রোগী বেশি, তার মধ্যে ঢাকা শিশু হাসপাতাল অন্যতম। তুলনামূলক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, রোববার হাসপাতালটিতে চারজন করোনা রোগী ভর্তি হয়। বিপরীতে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয় নয়জন।

সাপ্তাহিক হিসাবে, রোববার পর্যন্ত হাসপাতালটিতে ভর্তি হওয়া করোনা রোগীর সংখ্যা সাত। রোববারের আগে টানা তিন দিন হাসপাতালটিতে কোনো করোনা রোগী ভর্তি হয়নি। অন্যদিকে, একই সপ্তাহে হাসপাতালটিতে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয় ৯৪ জন। এ সময় প্রতিদিনই ডেঙ্গুতে আক্রান্ত শিশু ভর্তি হয়েছে বলে জানান হাসপাতালটির রোগতত্ত্ববিদ কিংকর ঘোষ।

হাসপাতালটিতে রোববার দেখা যায়, করোনায় সংক্রমিত রোগী ভর্তি আছে মোট ১১ জন। আর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মোট ভর্তি রোগী ছিল ৬৯ জন।

 

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd