1. admin@dailyoporadh.com : admin :
ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্টের রায় স্থগিত - দৈনিক অপরাধ
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইকবাল কার প্ররোচনায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রেখেছিলেন, তা বলেননি বাংলাদেশের সঙ্গে তুরস্কের বাণিজ্যিক সম্পর্ক করোনা মহামারির মধ্যেও খুব একটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন তুরস্কের রাষ্ট্রদূত ধর্মীয় সম্প্রীতিতে বাংলাদেশকে পৃথিবীর ‘নাম্বার ওয়ান’ বা সেরা উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন করোনা সংক্রমণে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, এ সময় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ২৭৮ জন। চেক জালিয়াতির মাধ্যমে যশোর শিক্ষা বোর্ডের ব্যাংক হিসাব থেকে আরও আড়াই কোটি টাকা আত্মসাত সারা দেশে প্রতিমা, পূজামণ্ডপ, মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে গণ–অনশন, গণ–অবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল করছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা উচ্চমাধ্যমিক বা এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের জন্য আবার সুযোগ দিয়েছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড সাম্প্রদায়িক শক্তি মনে করে, ঠিক একাত্তরের মতো টার্গেট করে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা চালিয়ে তাদের দেশ থেকে বের করে দেওয়া যায় কক্সবাজারের উখিয়ার থাইনখালী রোহিঙ্গা শিবিরে দুটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনায় সাত জন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছেন দ্বিতীয় ধাপে সারা দেশে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হতে যাচ্ছে

ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্টের রায় স্থগিত

দৈনিক অপরাধ ডেস্ক
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১২ আগস্ট, ২০২১
  • ৪৯ বার পঠিত

ধর্ষণের এক ঘটনায় ভোলার চরফ্যাশনের আবদুল জলিলকে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছেন, তা ১০ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন চেম্বার আদালত।
‘ভুল আইনে’ আবদুল জলিলের বিচার হয়েছিল বলে হাইকোর্ট রাষ্ট্রপক্ষকে এ ক্ষতিপূরণ দিতে বলেছিলেন।

হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদনের শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার চেম্বার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এ আদেশ দেন। একই সঙ্গে রাষ্ট্রপক্ষের করা লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠানো হয়েছে।
পরে বিশ্বজিৎ দেবনাথ বলেন, বিলম্ব মার্জনা চেয়ে করা লিভ টু আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে চেম্বার আদালত ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদানে হাইকোর্টের দেওয়া রায় ১০ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন। হাইকোর্ট রুলস অনুসারে যাবজ্জীবন দণ্ডিত কোনো আসামির জেল আপিল হাইকোর্টের একক বেঞ্চ শুনানি করতে পারেন না—এটিসহ কয়েকটি যুক্তিতে লিভ টু আপিলটি করা হয়। চেম্বার আদালত লিভ টু আপিলটি ২৪ অক্টোবর আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দিয়েছেন।

নথিপত্র থেকে জানা যায়, ২০০১ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর প্রতিবেশীর পাঁচ বছর বয়সী এক শিশুকে ‘প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের’ অভিযোগে পরদিন চরফ্যাশন থানায় মামলা হয়।

ওই মামলায় ভোলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইবুনাল ২০০৪ সালের ৩০ আগস্ট আবদুল জলিলকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে জলিল হাইকোর্টে আপিল করেন। হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ ওই জেল আপিল মঞ্জুর করে জলিলের দণ্ডাদেশ বাতিল করে মামলাটি পুনর্বিচারের জন্য বিচারিক আদালতে পাঠান। এরপর ২০১০ সালের ৮ মার্চ ভোলার অতিরিক্ত দায়রা জজ জলিলকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১) ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। ওই দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে ২০১০ সালে আবারও জেল আপিল করেন জলিল। এই জেল আপিল নিষ্পত্তি করে ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বর রায় দেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, নাবালক হলেও জলিলের বিচার শিশু আইনে হয়নি; যার ফলে তিনি আইনের আশ্রয় পাননি। হাইকোর্ট আসামিকে নাবালক বললেও নিম্ন আদালতের বিচারক তাতে গুরুত্ব দেননি; ফলে শিশু জলিল অবিচারের শিকার হয়েছেন।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ দৈনিক অপরাধ ©
A Sister Concern of Prachi 2020 Ltd